শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৬:০৪ অপরাহ্ন




মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্পের ছবি ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’

খবরপত্র ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০




প্রায় সাড়ে চার বছর পর ১ অক্টোবর আবারো শুরু হয়েছে ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ চলচ্চিত্রের শুটিং। ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ছবির কাজ শুরু হয়। ২০১৫ সালে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত এ ছবির শুটিং শুরু হয়েছিল ২০১৬ সালে। কিন্তু বাজেটসংক্রান্ত ঝামেলার কারণে ছেদ পড়ে যায় ছবির কাজে। এতদিন থেমে ছিল শুটিং। অবশেষে করোনার মাঝেই নির্মাতা নুরুল আলম আতিক শুরু করে দেন ছবির বাকি অংশের কাজ। জানা যায়, নাসির উদ্দীন ইউসুফের গল্পে ছবির কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন পরিচালক নিজেই। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্পের এ ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি। ছবিটির বিষয়ে কথা বলতে সম্প্রতি যোগাযোগ করা হয় তার সঙ্গে। অভিনেত্রী জানালেন, তার অংশের ছবির শুটিং শেষ। নিজ গ্রামের বাড়ি থেকে মাত্র ২০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে অভিনয় করছিলেন জ্যোতি। নিজের এলাকায় ছবির কাজের বিষয়ে তার অভিব্যক্তি জানতে চাইলে ভালোলাগার পাশাপাশি শুটিংয়ে বেশকিছু সমস্যাও হচ্ছিল বলে জানালেন অভিনেত্রী। ভালোবাসা মাঝে মাঝে যন্ত্রণা হয়ে দাঁড়ায়। তেমনটি ঘটেছে এ অভিনেত্রীর সঙ্গে। তবে সব মিলিয়ে নিজের এলাকায় শুটিং করতে পেরে বেশ আনন্দিত তিনি। শুটিং করেছেন বলে মনেই হয়নি তার। করোনার মধ্যে শুটিং চলছে। অভিনেত্রীর কথায় জানা গেল, গৌরীপুরে করোনার প্রভাব পড়েনি। তবু শুটিং চলাকালীন সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থেকেছেন। ব্যক্তিগতভাবে সতর্ক থাকতে সবার থেকে একটু দূরে দূরে থাকা, একটু দূরে বসে খাওয়াÍএ বিষয়গুলো মেনে চলার চেষ্টা করেছেন তিনি। ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ চলচ্চিত্রে দীপালি সাহা চরিত্রে দেখা যাবে জ্যোতিকে। চরিত্রটি সম্পর্কে জ্যোতি বলেন, ‘দীপালির মতো চরিত্রে এর আগে কাজ করিনি। মফস্বল শহরের একটি মেয়ে সে। নতুন বিয়ে হয়েছে তার। চারদিকে যুদ্ধ চলছে। এর মধ্যে স্বামীর জন্য সে অপেক্ষা করে। চারিদিকে ভয়। এ রকম দুশ্চিন্তার মধ্য দিয়ে সময় কাটে তার।’ এটুকু বলেই থেমে যান ছবির দীপালি। চরিত্র নিয়ে বেশি কিছু বলা বারণ বলে জানালেন। তাই আর বেশি কিছু জানতে না চেয়ে আলাপের মোড় ঘুরিয়ে নেয়া হয়। চরিত্রটির জন্য নিজেকে কীভাবে প্রস্তুত করেছেন সে প্রসঙ্গ তোলা হয়। জ্যোতি জানান, ‘ওজন বাড়াতে হয়েছে। আমার চরিত্রটি একজন গর্ভবতী নারীর।’
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন জ্যোতিকা জ্যোতি। কোন ছবিটিকে এগিয়ে রাখবেন, এমন প্রশ্নে তার উত্তর, ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ছবিটার গল্পটা আসলেই ভিন্ন। নির্দিষ্ট কোনো চরিত্রভিত্তিক ছবি নয় এটি। বরং যুদ্ধটাই এখানে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। আমি ছয়টি মুক্তিযুদ্ধের ছবিতে অভিনয় করেছি। তার মধ্যে পাঁচটিই অনুদানের। প্রতিটি ছবিতে একটি চরিত্রের কিংবা পরিবারের গল্প ছিল। কিন্তু এ ছবিতে পুরো একটা মফস্বল শহর ও সেখানকার মানুষের জীবনযাপনের চিত্র ফুটে উঠেছে। আর প্রেমের অংশটুকুতে আমার চরিত্র পড়েছে।’ অভিনেত্রী আরো যোগ করেন, ‘এতদিন পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক যত ছবিতে কাজ করেছি, আমার কাছে মনে হয়েছে এ প্রথম আমি মুক্তিযুদ্ধের ছবিতে অভিনয় করলাম।’ নির্মাতা নুরুল আলম আতিকের সঙ্গে জ্যোতির কাজের অভিজ্ঞতা অনেক দিনের। তার নির্দেশনায় কাজ করতে কেমন লাগে? ‘আতিক ভাইয়ের সঙ্গে ২০০৭-০৮ সাল থেকে কাজ করছি। একটা কাজ ঠিকঠাকভাবে না হওয়া পর্যন্ত তিনি শুটিং করতেই থাকেন। কাজের ব্যাপারে কোনো ধরনের সমঝোতা তিনি করেন না। আতিক ভাইয়ের এ বিষয়টা খুব ভালো লাগে আমার। তিনি সবসময় চলচ্চিত্রের মধ্যে থাকেন। তার সঙ্গে সবসময় কাজ করতে চাই।’ আলাপ এবার শেষ দিকে। ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ছবির কাজ তো প্রায় শেষ। এবার কী করবেন? হাতে নতুন কোনো প্রজেক্ট আছে কিনা? জ্যোতিকা জ্যোতি জানান, কলকাতায় একটি ছবিতে কাজের কথা হচ্ছে তার। নভেম্বরে কাজ শুরু হতে পারে। তার মানে এ অভিনেত্রীর পরের প্রজেক্ট হয়তো কলকাতার কোনো ছবি।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com