মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন




পাটগ্রাম বুড়িমারী আঞ্চলিক মহাসড়ক সংস্কার ও দুইপাশে ছয় ফিট প্রশস্থ করা হচ্ছে

আমিনুর রহমান বাবুল পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) :
  • আপডেট সময় বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০




লালমনিরহাট বুড়িমারী আঞ্চলিক মহাসড়কের পাটগ্রাম বুড়িমারী ১০ কিলোমিটার সড়ক সংস্কার ও দুইপাশে প্রশস্থ করা হচ্ছে। সড়ক ও জনপথ সুত্রে জানা গেছে লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের অধীনে জিওবির অর্থায়নে ২৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়ক সংস্কার করা হচ্ছে। যশোরের মঈনুদ্দীন বাঁশি নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গত বছরের মে মাস থেকে সড়কটির নির্মাণ কাজ শুরু করেন। এসব কাজের মধ্যে আছে ৫ কিলোমিটার পুর্বের রাস্তা ভেঙ্গে নুতন করে শক্তিশালী করণ সহ ১০ কিলোমিটার বাইন্ডার এবং ওয়্যারিং কোর্স। এ ছাড়াও রাস্তার দুইপাশে তিন ফিট করে ছয় ফিট আরো প্রশস্থ করে সেগুলো এস বিবি করণ/হেরিং সোলিং রাস্তার বিভিন্ন স্থানে ৪৬০ মিটার প্লাসাইটিং। তবে এসব কাজের অধিকাংশ ইতোমধ্যেঃ সম্পূর্ণ হয়েছে। বর্তমানে বুড়িমারী বাজারে রাস্তার দুইপাশে এক হাজার ৮শ মিটার ড্রেন নির্মানের কাজ চলছে। জানা গেছে লালমনিরহাট বুড়িমারী আঞ্চলিক মহাসড়ক হলেও ্এর রয়েছে তিনটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ দিক। এর যে কোন একদিকে যে কেউ খুব সহজে রংপুর ঢাকা সহ দেশের যেকোন স্থানে খুব সহজে যেতে পারে। বুড়িমারী স্থলবন্দর থেকে বড়খাতা দিয়ে দেশের বৃহত্তম সেচপ্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ হয়ে রংপুর ঢাকা যেতে পারে। আবার ওই পথে না গিয়ে আরো সহজে অনেকে কাকিনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয় তিস্তা সেতু পার হয়ে গন্তব্য স্থলে যান। তবে লালমনিরহাট দিয়েও ঢাকা যাওয়া যায় এতে সময় একটু বেশী লাগে। বুড়িমারী থেকে ঢাকা যাতায়াতের এই তিনটি পথই রংপুর মর্ডাণ মোড়ে ঢাকা মহাসড়কে গিয়ে মিলিত হয়েছে। ফলে লালমনিরহাট বুড়িমারী আঞ্চলিক মহাসড়কটির গুরুত্ব দিন যত যাচ্ছে, বৃদ্ধি পাচ্ছে। ওই সড়ক দিয়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর থেকে প্রতিদিন শত শত পণ্যবাহী ট্রাক নাইটকোচ বাস মিনিবাস প্রাইভেটকার মাইক্রবাস রংপুর বগুড়া ঢাকা চট্রগ্রাম সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চলাচল করায় সড়কটি ভেঙ্গে গিয়ে বড় বড় গতের্র সৃষ্টি হয়। ফলে লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগ সড়কটি সংস্কারের উদ্যেগ গ্রহন করলে গত বছরের মে মাসে নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এদিকে সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি সুত্র জানায় অধিকাংশ চালক গতিপথ এবং নির্ধারিত লোডিং মানছেন না। তারা ট্রাকে অতিরিক্ত পণ্য নিয়ে গন্তব্যস্থলে ছুটে চলছেন। একটি সড়ক দিয়ে কতগুলো পণ্য পরিবহন করা যাবে তা নির্ধারণ করা থাকে। কেউ এর অতিরিক্ত পরিবহন করলে ওই সড়কের দীর্ঘস্থায়ী থাকেনা। এ ব্যপারে সবাইকে সচেতন হতে হবে। এ বিষয়ে লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকোশলী মাহবুব আলম বলেন সড়কটি অত্যান্ত গুরুত্ব দিয়ে আমরা নির্মাণ কাজ করছি। এতে আমাদের আন্তরিকতার কোন অভাব নেই। আমার এসও আলমগীর হোসেন সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ায় আমি নিজে সব তদারকি করছি। নির্মান কাজ শুরু থেকে আগামী তিন বছর পর্যন্ত চলমান থাকবে এ সময়ের মধ্যে রাস্তাটি কোথাও কোন ক্ষতিগ্রস্থ হলে ঠিকাদার পূনরায় সেটি ঠিক করে দেবেন। তবে এবারকার অতি বৃষ্টির কারনে রাস্তার দুইপাশে কিছু স্থানে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সেগুলো ঠিক করা হচ্ছে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com