সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
নওগাঁ জেলায় চলতি রবি মৌসুমে ২০ হাজার ৯শ ৬০ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা মাধবদীতে বিদেশী শীত বস্ত্রের দখলে মার্কেট গলাচিপায় ইপিজেড বাস্তবায়নের দাবীতে মানববন্ধন পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন বরিশালের দূর্গাসাগরে ১৩ বছর পর অতিথি পাখির আগমন, কলকাকলিতে মুখর করোনা: সাইটোকাইন স্টর্ম কেন হয়? পিরোজপুরে বঙ্গবন্ধু এর ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতার ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন রায়গঞ্জ রফিক ইন্টারন্যাশনাল স্যাটালাইটের সৌজন্যে গরীব দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করোনায় মারা গেছেন ওস্তাদ শাহাদাত হোসেন খান মনোহরদীতে মহিলা আওয়ামী লীগ’র ত্রিবার্ষিক সম্মেলন সভাপতি তামান্না ও সম্পাদক রুবী




আওয়ামী নেতাকর্মীরাও ছাড় পাচ্ছেন না: ওবায়দুল কাদের

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০




বিচার বিভাগ স্বাধীন বলেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও অপরাধ করে ছাড় পাচ্ছেন না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। শুক্রবার (২০ নভেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের অনেকের বিরুদ্ধেই দুদকের মামলা চলছে। এখানে সরকার কোনও হস্তক্ষেপ করে না। তারা (বিএনপি) যখন ক্ষমতায় ছিল তখন কি দেশে দুর্নীতি হয়নি? তাদের কয়জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে? একজনকেও দেখাতে পারবেন না।’ বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘তারা নিজেদের নেত্রীর মুক্তির দাবিতে একটা বড় মিছিল পর্যন্ত করতে পারেনি। তারা আন্দোলনেও ব্যর্থ। আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে তারা নালিশ আর প্রেস ব্রিফিংয়ের রাজনীতি শুরু করেছে।’ ‘বিরোধীদল শক্তিশালী হলে গণতন্ত্র শক্তিশালী হয়। আমাদের পরস্পরবিরোধী রাজনীতির কারণে বিদ্বেষের দেয়াল উঁচু হয়েছে। কোকোর মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহমর্মীতা জানাতে খালেদা জিয়ার কাছে গিয়েছিলেন। কিন্তু দেখা করা তো দূরের কথা, বাসার গেট পর্যন্ত খোলেননি। সম্প্রীতি গড়তে তারা দেননি।’Íবলেন ওবায়দুল কাদের। মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত ওবায়দুল কাদেরবিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মানুষের মনের কথা পড়তে পারে না, এ দাবি ঠিক নয়। পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হলেন শেখ হাসিনা। একজন শিশুও তার কাছে চিঠি লিখতে পারে। এ রকম একটি ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পটুয়াখালীতে ব্রিজ নির্মাণের নির্দেশনা দেওয়া হয়। শেখ হাসিনা অসহায়দের বুকে জড়িয়ে ধরে স্বস্তি পান।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি সাধারণ মানুষের মনের কথা বুঝতে পারাতো দূরের কথা, নিজের দলের নেতাকর্মীদের মনের কথাই বুঝতে পারেন না। হঠাৎ রাতের অন্ধকারে দলের গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাতিল করে তারা কী আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজদের প্রতিষ্ঠিত করতে চায়? এ ধারা কেন বাতিল করা হলো, এর জবাব মির্জা ফখরুল কখনও দেননি। আপনারা (সাংবাদিক) তাকে জিজ্ঞাসা করবেন কেন এমনটা করা হলো।’
সাংবাদিকদের প্রতি প্রশ্ন রেখে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচন নিয়ে সমালোচনা করে, অথচ নির্বাচনের আগে হইচই করলেও ভোটের দিন তাদের মাঠে পাওয়া যায় না। ভোটকেন্দ্রে তাদের এজেন্ট পর্যন্ত থাকে না। তারা অভিযোগ করে থাকেন তাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়ার। আপনারা (সাংবাদিক) তো ভোটের সংবাদ কাভার করতে মাঠে থাকেন, আপনারা কখনও দেখেছেন এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে?’ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com