রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৫৮ অপরাহ্ন

হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারের সঠিক নিয়ম

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২৩

শীতের মৌসুমে চুল শুকানোর ঝামেলাটা একটু বেশিই। আপনি হয়তো চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করছেন অথবা ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। চুলের ঘনত্বকে গুরুত্ব দিয়ে হেয়ার ড্রায়ার নির্বাচন করা জরুরি। কম ঘনত্বের চুলের জন্য যে হেয়ার ড্রায়ার দরকার, বেশি ঘনত্বের চুলের জন্য সেটি দরকার নেই।
শুধুমাত্র চুল শুকানোর কাজেই হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা হয় না। এর ভিন্ন ব্যবহারও রয়েছে। এই শীত মৌসুমে বিভিন্ন অনুষ্ঠান লেগেই থাকে। অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য চটজলদি চুলের স্টাইল করে নিতে চাই আমরা। আর এই কাজটি অনেকখানি সহজ করে দেয় হেয়ার ড্রায়ার। এই যন্ত্রটি কেনার আগে বেশ কয়েকটি দিক খেয়াল রাখা প্রয়োজন কারণ এর সঙ্গে মাথা এবং চুলের সুস্থতার সম্পর্ক রয়ছে।
১. আপনি বাজারে গেলেন আর বেশি দামের একটি হেয়ার ড্রায়ার কিনে ভাবলেন ‘ঠিক আছে’। বাজারে সাধারণত ৭০০ থেকে ১৮০০ ওয়াটের হেয়ার ড্রায়ার পাওয়া যয়। রূপ বিশেষজ্ঞরা বলেন, চুল যদি খুব ঘন হয় তবে বেশি ওয়াটের হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা নিরাপদ। চুল পাতলা হলে বেশি ওয়াটের হেয়ার ড্রায়ার ক্ষতি করতে পারে। এতে চুলের সাথে নষ্ট হবে চুলের গোড়াও। আপনার যদি প্রতিদিন হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারের প্রয়োজন হয়, তাহলে অবশ্যই কম ওয়াটের হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করুন।
২. হেয়ার ড্রায়ারের অ্যাটাচমেন্টগুলোর মধ্যে নজলটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটি ঠিক না থাকলে ব্লো ড্রাই করতে সমস্যা হবে।
৩. কোঁকড়ানো চুল নিয়ে বেশ ঝামেলা পোহাতে হয়। এই ধরনের চুল শুকানোর জন্য ডিফিউজার সহ হেয়ার ড্রায়ার ভালো। এর ব্যতিক্রম হলে চুলগুলো পাকিয়ে যেতে পারে।
৪. হেয়ার ড্রায়ারটি কেনার আগে হাতে নিয়ে দেখুন ওজনটা ঠিকঠাক মনে হয় কিনা। হালকা-ভারী দুই ধরনের হেয়ার ড্রায়ারই বাজারে রয়েছে। কথা হচ্ছে, আপনি যেটিতে স্বচ্ছন্দবোধ করেন, সেটিই নির্বাচন করুন।
৫. যে কোম্পানির হেয়ার ড্রায়ার কিনবেন সেই কোম্পানির পক্ষে ওয়ারেন্টি বা গ্যারান্টি দেওয়া আছে কিনা জেনে নিন। প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সংরক্ষণ করুন। যন্ত্র যেকোন সময়ই নষ্ট হতে পারে। হেয়ার ড্রায়ারে কোনো সমস্যা দেখা দিলে সার্ভিস সুবিধা নিতে হতে পারে।
হেয়ার ড্রায়ার করার কয়েকটি ধাপ: সম্পূর্ণ ভেজা চুলে ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না। তোয়ালে দিয়ে চুল মুছে নিয়ে এরপর হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করুন। মোটা তোয়ালে ব্যবহার না করাই ভালো। পাতলা তোয়ালে দিয়ে আলতো করে চুল মুছুন। এতে চুল রুক্ষ হওয়ার আশঙ্কা কমে যাবে। চুলের গোছা কয়েক ভাগে ভাগ করে নেবেন। এরপর হেয়ার ড্রায়ার চালু করে শুকিয়ে নেবেন। এক দিনে একবারের বেশি হেয়ার ড্রায়ার করতে যাবেন না। চুল শুকানোর সময় হেয়ার ড্রায়ার ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ব্যবহার করা ভালো।
ত্বক বিশেষজ্ঞরা বলেন, হেয়ার ড্রায়ারের গরম বাতাস মাথার ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। এই যন্ত্রের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে চুলের গোড়া নষ্ট হতে পারে। সম্ভব হলে প্রাকৃতিক রোদ, বাতাস অথবা ফ্যানের বাতাসে চুল শুকানো ভালো। ভালো খবর হচ্ছে, বর্তমানে এমন কিছু হেয়ার ড্রায়ার পাওয়া যাচ্ছে যেগুলো থেকে ঠান্ডা বাতাস বের হয়। এগুলো প্রতিদিন ব্যবহার করলেও চুলের ক্ষতি হবে না বলে কোম্পানিগুলো প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে। কোথায় পাবেন: ওয়ালটন, কেমি, প্যানাসনিক, রেডিয়ান, ফিলিপস ইত্যাদি। দরদাম: ৯২৫ টাকা থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যে বিভিন্ন মানের হেয়ার ড্রায়ার কেনা যাবে। তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com