রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
আগৈলঝাড়ায় সরকারি সম্পত্তি থেকে গাছ কর্তন, অবশেষে সমস্ত গাছ সিজ করল বন কর্মকর্তা আজ তৃতীয় ধাপে ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রেমের টানে মেক্সিকো থেকে জামালপুর লামায় অভিষেক ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ছাতিম ফুল: যে ফুলের সুবাসে সুবাসিত হয় হেমন্তের রজনী অপরিণত নবজাতক শিশুকে জন্মের এক মাসের মধ্যে চিকিৎকদের কাছে আনতে হবে রায়গঞ্জে রোপা আমন ধান কাটা শুরু, ফলন এবং দাম ভাল জ্বালানী তেল ও গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি এবং দ্রব্যমূল্য বাড়ায় প্রতিবাদে কুষকদলের লিফলেট বিতরন ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রামবাসীর তাড়া খেয়ে মরল নীলগাই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আরশিনগরে বর্ণাঢ্য আয়োজনের ঘোষণা




৭ কলেজের দুই শিক্ষাবর্ষের কার্যক্রম ৮ মাসেই শেষ হচ্ছে

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় রবিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২১




ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত রাজধানীর সরকারি সাত কলেজের দুটি শিক্ষাবর্ষের সেশনজট কমাতে নির্ধারিত সময়ের আগেই শিক্ষাবর্ষ শেষ করার পরিকল্পনা করেছে প্রশাসন। শিক্ষাবর্ষ দুটি হলো স্নাতক চতুর্থ বর্ষ (২০১৬-১৭ সেশন) ও স্নাতকোত্তর শেষ পর্ব (২০১৮-১৯ সেশন)। এই দুটি শিক্ষাবর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা চলতি বছরের ডিসেম্বরে শুরু হবে। এরই মধ্যে সাত কলেজ থেকে এ দুই শিক্ষাবর্ষের ইনকোর্স ও নির্বাচনী পরীক্ষা নভেম্বরের মধ্যে নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। গতকাল রোববার (১০ অক্টোবর) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ ও সাত কলেজের সমন্বয়ক অধ্যাপক আইকে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার। তিনি বলেন, এই মুহূর্তে এক বর্ষের সঙ্গে অন্য বর্ষের শিক্ষাকার্যক্রম মেলানোর সুযোগ নেই। এক বর্ষের পরীক্ষার পর ফলাফল প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত অন্য বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা আটকে রাখার সুযোগ নেই। এজন্যই ডিসেম্বরে স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের পরীক্ষা নিয়ে নেব।
সাত কলেজের সমন্বয়ক বলেন, ডিসেম্বরে কলেজগুলোতে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলে সকালে এইচএসসি পরীক্ষার পর বিকেল স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা নেওয়া হবে। এইচএসসির জন্য পরীক্ষা নিতে কোনো সমস্যা হবে না। অপরদিকে, করোনার ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার জন্য দ্রুত শিক্ষাবর্ষের কার্যক্রম শেষ করার এমন সিদ্ধান্তে স্বস্তি প্রকাশ করছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা বলছে, দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও এ সিদ্ধান্ত আলোর মুখ দেখেছে তাতেই স্বস্তি। করোনার ক্ষতি কমাতে ও সাত কলেজের পুরনো সেশনজট কাটিয়ে উঠতে সেশন সংক্ষিপ্ত করার বিষয়টি শিক্ষার্থীদের জন্য কল্যাণকর।
ঢাকা কলেজের স্নাতক ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে যদি শিক্ষাবর্ষ সংক্ষিপ্তের চূড়ান্ত ঘোষণা এবং পরিকল্পনা প্রণয়ন ও প্রকাশ করা না যায় তবে বড় ধরনের ক্ষতির মুখোমুখি হতে হবে। এ সিদ্ধান্ত আরও আগেই আমাদের জানানো উচিত ছিল। করোনার সংক্রমণ রোধে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় পূর্ব থেকেই বিদ্যমান সেশনজট নতুন রূপ পেয়েছে। আমাদের অনেক আগেই স্নাতক শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখনও চতুর্থ বর্ষে। তাই এই সিদ্ধান্তে কিছুটা স্বস্তি পাচ্ছি। এটি বাস্তবায়নে শিক্ষকদের সহযোগিতাও প্রয়োজন। সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকোত্তর শেষ পর্বের শিক্ষার্থী সাব্বির আহমেদ বলেন, আমরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই সেশনজট সংকটে রয়েছি। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হওয়ার পরও তেমন অগ্রগতি হয়নি। আমরা অনেকেই পারিবারিক প্রয়োজনে নিয়মিত চাকরি করছি। এই মুহূর্তে সংক্ষিপ্ত সময়ে সেশন শেষ করার পরিকল্পনা যথার্থ। ইতোমধ্যেই বিভাগগুলোতে এই দুই বর্ষের প্রথম ইনকোর্স পরীক্ষা নিয়ে নেওয়া হয়েছে বলেও জানান ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক এটিএম মইনুল হোসেন। তিনি বলেন, এই দুটি বর্ষের শিক্ষার্থীরা চূড়ান্ত পরীক্ষা দ্রুতই নেওয়ার ব্যাপারে ইতোমধ্যেই বিভাগীয় প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। তাদের নির্বাচনী পরীক্ষা এবং ইনকোর্স পরীক্ষা ও যাবতীয় প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য বলেছি। সেভাবেই সব বিভাগগুলোতে কার্যক্রম চলছে।
উল্লেখ্য, শিক্ষার মানোন্নয়নে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে রাজধানী ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ও পুরনো সাতটি সরকারি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়।
কলেজ সাতটি হলো: ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, সরকারি কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। অধিভুক্তির পর থেকে এসব কলেজে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তি, প্রশ্ন প্রণয়ন, পরীক্ষা গ্রহণ, ফলাফল প্রকাশ, চূড়ান্ত সার্টিফিকেট প্রদানসহ শিক্ষা সম্পর্কিত বিষয়গুলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ই দেখভাল করছে। বর্তমানে এই সাতটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রায় আড়াই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com