বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
সিলেটে আবার বাড়ছে পানি জামালপুরে শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সভা জগন্নাথপুরে অসহায় মানুষের সেবায় দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন ওসি মিজান দুর্গাপুরে শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ ও শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থীকে প্রেসক্লাব সম্মাননা সাভারে শিক্ষক হত্যা ও নির্যতনের প্রতিবাদে মৌলভীবাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ রুয়েটে রোবটিক্স ফেয়ার “রোবোট্রনিক ২.০” শুরু গলাচিপায় ব্র্যাক সংস্থা সামাজিক ক্ষমতায়ন ও আইনি সুরক্ষা বিষয়ে পল্লী সমাজ গঠন নগরকান্দায় সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুমিনুর রহমানকে সংবর্ধনা জামালপুরে হিজড়াদের উন্নয়নে কমিউনিটি পর্যায়ে অভিভাবক সভা বরিশাল পোর্টরোড মোকামে নিষেধাজ্ঞা সত্বেও ট্রাকে ট্রাকে আসছে ইলিশ

২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২

২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) সর্বোচ্চ বরাদ্দ পেয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাত। এ খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৭০ হাজার ৬৯৬ কোটি টাকা। যা মোট বাজেটের ২৮ দশমিক ৭৩ শতাংশ। অন্যদিকে আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার সংশোধিত এডিপির চেয়ে ১৭ শতাংশ বাড়িয়ে প্রায় দুই লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকা নির্ধারণ করেছে। এর মধ্যে অভ্যন্তরীণ উৎস হতে অর্থায়ন ১ লাখ ৫৩ হাজার ৬৬ কোটি ৯ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক উৎস হতে অর্থায়ন ৯৩ হাজার কোটি টাকা। স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান বা কর্পোরেশনের ৯ হাজার ৯৩৭ কোটি ১৮ লাখ টাকার এডিপিও অনুমোদিত হয়েছে। যার মধ্যে অভ্যন্তরীণ উৎস হতে অর্থায়ন ৭ হাজার ১০৪ কোটি ২ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক উৎস হতে অর্থায়ন ২ হাজার ৮৩৩ কোটি ১৬ লাখ টাকা। সূতরাং স্বায়ত্বশাসিত বা কর্পোরেশনের প্রকল্পসহ এডিপি’র সর্বমোট আকার দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৫৬ হাজার ৩ কোটি টাকা। ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় মোট প্রকল্প ১৪৩৫টি। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ১২৪৪টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ১০৬টি এবং স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা/কর্পোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নে ৮৫টি প্রকল্প।
খাতভিত্তিক সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাওয়া ১০ প্রকল্প: আগামী অর্থবছরে খাতভিত্তিক সর্বোচ্চ বরাদ্দ পেয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাত। এ খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ৭০ হাজার ৬৯৬ কোটি টাকা। যা মোট বরাদ্দের ২৮ দশমিক ৭৩ শতাংশ
দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত। এ খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ৩৯ হাজার ৪১২ কোটি টাকা। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে শিক্ষা খাত। শিক্ষা খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ২৯ হাজার ৮১ কোটি টাকা। যা মোট বরাদ্দের ১১ দশমিক ৮২ শতাংশ। এছাড়া গৃহায়ণ ও কমিউনিটি সুবিধাবলী খাতে প্রায় ২৪ হাজার ৪৯৭ কোটি টাকা (৯.৯৬%); স্বাস্থ্য খাতে প্রায় ১৯ হাজার ২৭৮ কোটি টাকা (৭,৮৩%); স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন খাতে প্রায় ১৬ হাজার ৪৬৫ কোটি টাকা (৬.৬৯%); কৃষি খাতে প্রায় ১০ হাজার ১৪৪ কোটি টাকা (৪.১২%); পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন এবং পানি সম্পদ খাতে প্রায় ৯ হাজার ৮৫৯ কোটি টাকা (৪.০১%); শিল্প ও অর্থনৈতিক সেবা খাতে প্রায় ৫ হাজার ৪০৭ কোটি টাকা (২,২০%); এবং বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি খাতে প্রায় ৪ হাজার ১৬৮ কোটি টাকা (১.৬৯%) বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এই ১০টি খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ২ লাখ ২৯ হাজার ৭ কোটি টাকা বা ৯৩.০৭%।
মন্ত্রণালয়/বিভাগ ভিত্তিক সর্বোচ্চ বরাদ্দ (১০টি): এবার সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাওয়া বিভাগ হলো স্থানীয় সরকার বিভাগ। স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রায় ৩৫ হাজার ৮:৪২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর পরেই রয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। এ বিভাগে প্রায় ৩১ হাজার ২৯৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ বিভাগে প্রায় ২৪ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা; বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে প্রায় ১৬ হাজার ১১ কোটি টাকা; স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে প্রায় ১৫ হাজার ৮৫১ কোটি টাকা; রেলপথ মন্ত্রণালয়ে প্রায় ১৪ হাজার ৯২৯ কোটি টাকা; মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগে প্রায় ১৪ হাজার ১ কোটি টাকা; প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রায় ৯ হাজার ২৯০ কোটি টাকা এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে প্রায় ৭ হাজার ৯৩৮ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০টি প্রকল্প: এদিকে প্রকল্প খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পেয়েছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প। এ প্রকল্পে প্রায় ১৩ হাজার ৩৯৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি প্রকল্পে (পিইডিপি-৪) প্রায় ৮ হাজার ৭৫৯ কোটি টাকা; মাতারবাড়ি ২৬০০ মেঃ ও আন্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্টে প্রায় ৬ হাজার ৫৫৪ কোটি টাকা; হযরত শাহজালার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণ (১ম পর্যায়) প্রকল্পে প্রায় ৬ হাজার ১৯ কোটি টাকা; পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পে প্রায় ৫ হাজার ৮০৯ কোটি টাকা; কোভিড-১৯ ইমারজেন্সি রেসপন্স এন্ড প্যানডেমিক প্রিপেয়ার্ডনেস (ডব্লিউবি-জিওবি) প্রকল্পে প্রায় ৪ হাজার ২৫৪ কোটি টাকা; বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ প্রকল্পে প্রায় ৩ হাজার ৮৫১ কোটি টাকা; ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পে প্রায় ৩ হাজার ৭০৩ কোটি টাকা; এক্সপানশন এন্ড স্ট্রেংদেনিং অব পাওয়ার সিস্টেম নেটওয়ার্ক আন্ডার ডিপিডিসি এরিয়া প্রকল্পে প্রায় ৩ হাজার ৫৯ কোটি টাকা এবং ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-৬) প্রকল্পে প্রায় ২ হাজার ৮৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com