মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১১:৪০ অপরাহ্ন
শিরোনাম ::
পি কে হালদারকে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে : দোরাইস্বামী ২১ ডেঙ্গু রোগী ঢাকার হাসপাতালে ভর্তি হজে যেতে পাসপোর্টের মেয়াদ থাকতে হবে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির দুই নেতা সম্রাটের জামিন বাতিলের বিষয়ে আদেশ আজ আর্থিক অনুমোদনের ক্ষমতা কমলো পরিকল্পনামন্ত্রীর হানিমুনেই আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল জনি ডেপ: অ্যাম্বার ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ: বড় বাস ২৪০০, মাঝারি ট্রাক ২৮০০, কার/জিপে লাগবে ৭৫০ টাকা কবিতার ইতিহাসে কাজী নজরুলের ‘বিদ্রোহী’ এক অনন্য সাধারণ রচনা : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

মহাদেবপুরে বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে বোরো রোপণের ধুম

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি :
  • আপডেট সময় শনিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২২

উত্তরাঞ্চলের শস্যভা-ার খ্যাত নওগাঁর মহাদেবপুরে বোরো ধান রোপণে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। মাঘের প্রচ- শীত ও হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করে মাঠে নেমে পড়ছেন তারা। নদীর পাড়ে, খালের ধারে, রাস্তার পাশের জমিতে ও ফসলের মাঠে ধানের কচি চারার সবুজ গালিচা। কোথাও গভীর নলকূপ দিয়ে চলছে সেচ, আবার কোথাও কোথাও ট্রাক্টর ও পাওয়ার টিলার দিয়ে চলছে জমি চাষ। ধান রোপণের জন্য বীজতলা থেকে তোলা হচ্ছে চারা। চারা তোলা আর রোপণের ব্যস্ততায় কৃষকের গায়ে শীত যেন স্পর্শ করছেনা। বিগত মৌসুমে কৃষকরা ধানের ভালো দাম পাওয়ায় এবার লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে বোরো চাষ হবে বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ২০২১-২০২২ বোরো মৌসুমে ২৮ হাজার ৪০ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল (উফশী) ও হাইব্রিড জাতের বোরো ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে উপজেলা কৃষি বিভাগ। এ পরিমাণ জমিতে বোরো চাষ করতে এক হাজার ৮৫৫ হেক্টর জমিতে বীজতলা তৈরি করেছে চাষিরা। ২২ জানুয়ারি শনিবার পর্যন্ত এক হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে চারা রোপন সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে। উপজেলার সিদ্দিকপুর গ্রামের লিয়াকত আলী, লোকমান হাকিম ও বাজিতপুর গ্রামের আব্দুর রহমানসহ ২০ থেকে ২৫ জন বোরো চাষি জানান, ধান রোপণে তারা ব্যস্ত সময় পার করছেন। প্রচন্ড শীতের কারণে কৃষি শ্রমিকরা কাজ করতে পারছে না। ফলে শ্রমিক সংকটের পাশাপাশি তাদের অতিরিক্ত মজুরি দিতে হচ্ছে। কৃষকদের মতে, প্রতি বিঘা জমিতে বোরো চাষ শেষ করতে কমপক্ষে চার থেকে সাড়ে চার হাজার টাকা খরচ করতে হবে। অনেক ক্ষেত্রে পোকা-মাকড়ের আক্রমণ দেখা দিলে খরচের পরিমান আরো বেড়ে যাবে। মহাদেবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ অরুন চন্দ্র রায় বলেন, উপজেলার ৩০টি ব্লকে বোরো চাষিদের সার্বিক পরামর্শ ও পরিচর্যার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। বাজারে সার ও তেলের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় ভরা মৌসুমে কোনো সঙ্কটের আশঙ্কা নেই।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com