শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন

জামালপুর এপির উদ্যোগে শিখন বিনিময় ও সিএফদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন

জামালপুর প্রতিনিধি :
  • আপডেট সময় বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বছরব্যপী সকল পর্যায়ের কর্মী ও কমিউনিটি ফ্যাসিলিটেটর(সিএফ)দের নিরন্তর পরিশ্রম এবং অভিযাত্রায় অভিষ্ঠ লক্ষমাত্রা অর্জনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা বিষয়ে শিখন বিনিময় এবং সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন বিষয়ে এক ব্যতিক্রমি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উন্নয়ন সংঘ ও ওয়ার্ল্ড ভিশনের জামালপুর এরিয়া প্রোগ্রাম এপি। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উন্নয়ন সংঘের নির্বাহী পরিচালক মোঃ রফিকুল আলম মোল্লা। উন্নয়ন সংঘের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ডিটিআরসিতে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিম, সহকারী পরিচালক কর্মসূচি মুর্শেদ ইকবাল, এপি ব্যবস্থাপক মিনারা পারভীন প্রমূখ। অনুষ্ঠানে সংস্থার জ্যেষ্ঠ কর্মী, এপির কর্মী ও সিএফরা অংশ নেন। অনুষ্ঠানে সকলকে শুভেচ্ছা উপহার দেয়া হয়। পরে নিজেদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়। দিনব্যপী নানা আয়োজনের মাধ্যমে উন্নয়ন সংঘের চাইল্ড সিটির সবুজ প্রাঙ্গনে এক আনন্দঘন পরিবেশের তৈরি হয়। শিশুদের মৌলিক চাহিদা পূরণের জন্যে খানার স্থায়ী আয়ের উৎসে সহযোগিতা, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, ওয়াস, শিশু সুরক্ষা এবং অংশগ্রহণ কার্যক্রমের মাধ্যমে সমাজের অবস্থা উন্নতির লক্ষ্যে জামালপুরে শুরু হয়েছে এরিয়া প্রোগ্রাম (এপি) নামে ১০ বছর মেয়াদী কর্মসূচি। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বেসরকারি সংস্থা উন্নয়ন সংঘ জামালপুরে এপি বাস্তবায়ন করছে। সূত্র জানায়, এরিয়া প্রোগ্রামটি জামালপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীরচর, শরিফপুর ইউনিয়ন এবং জামালপুর পৌরসভার ১, ১০, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডে বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। এই কর্মসূচির আওতায় ৩৯টি গ্রামে ২৩ হাজার ২৮২ জন উপকারভোগী নির্বাচন করা হয়েছে। কর্মসূচির সকল কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করতে এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ নিয়ে গ্রাম উন্নয়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কার্যক্রমের মধ্যে জীবীকায়ন, স্বাস্থ্য, পুষ্টি, ওয়াস এবং স্পন্সরশীপ অন্যতম। এরমধ্যে আবার খানা জরিপ, দক্ষতা উন্নয়ন, পরিবেশ সম্মত গ্রাম প্রতিষ্ঠা, জিঙ্ক ধান উৎপাদন, অতিদারিদ্রের উন্নয়ন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, দল গঠন, সক্ষমতার বিকাশ ঘটানো, প্রসবপূর্ব ও প্রসব পরবর্তী সেবা, শিশু অধিকার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি, বিপদাপন্ন শিশুর তালিকা তৈরিসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। কর্মসূচি বাস্তবায়নে অর্থায়ন করছে হংকং।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com