মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
জয়পুরহাটে ১ লাখ ৩৫ হাজার মেট্রিক টন শাক সবজি উৎপাদন হয়েছে সাউথইস্ট ব্যাংক রেমিট্যান্স ক্যাম্পেইনের সাথে ১০টি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন চুয়াডাঙ্গা জেলার হাজরাহাটী এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ করল শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নির্বাচন ঝলক সভাপতি এবং আখতার সম্পাদক সংগীত পরিচালক আনোয়ার জাহান নান্টু আর নেই এ যেন চুয়াত্তরের দুর্ভিক্ষের প্রতিচ্ছবি, পদধ্বনি: প্রিন্স ভূমিকম্পে ধ্বংসস্তূপ তুরস্ক ও সিরিয়া, মৃত প্রায় ২০০০ প্রতিটি জায়গায় লুটপাটের কারণে দ্রব্যমূল্য বেড়ে যাচ্ছে : খসরু হিরো আলম নিয়ে কিছুই বলিনি, ফখরুলের মন্তব্যের জবাব দিয়েছি: কাদের তিন ফসলি জমিতে সরকারি প্রকল্পও নয়: প্রধানমন্ত্রী

কটেজে রুম না পেয়ে খোলা আকাশের নিচে পর্যটকরা

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় সোমবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২২

মেঘের রাজ্য নামে খ্যাত রাঙামাটির ‘সাজেক’ পর্যটকদের কাছে অন্যতম দর্শনীয় একটি স্পট। নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ঘেরা উঁচুনিচু পাহাড়সহ শীতের মৌসুমে কুয়াশার চাদরে ঢেকে থাকা প্রকৃতির অপরূপ দৃশ্য দেখতে তাই বছরজুড়ে পর্যটকদের ভিড় লেগেই থাকে এখানে। চলতি ডিসেম্বর মাসে সাপ্তাহিক ও বড় দিন মিলে টানা তিন দিনের সরকারি ছুটিতে থাকায় রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেকে ভিড় করতে শুরু করেছেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। ইতোমধ্যে দেশের এ পর্যটন কেন্দ্রটির সব কটেজ ও রিসোর্ট শতভাগ বুকিং হয়ে রয়েছে। অগ্রিম বুকিং ছাড়া যারা এখানে এসেছেন হোটেল কটেজে রুম না পেয়ে তাই বাধ্য হয়ে গতকাল শনিবার তাদের সাজেকের খোলা আকাশের নিচে রাত্রিযাপন করতে হয়েছে। সাজেকের কুড়েঘর রিসোর্টের মালিক মো. মামুন বলেন, ‘শীত মৌসুম এবং সরকারি টানা তিন দিনের ছুটি থাকার ফলে সাজেকের বেশিরভাগ কটেজ এক মাস আগে বুকিং হয়ে গেছে। এই কারণে গতকাল সাজেকে অনেক টুরিষ্টকে খোলা আকাশের নিচে এবং গাড়িতে রাত কাটাতে হয়েছে।‘ তিনি আরও বলেন, ‘চলতি মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত আমাদের সবকটি রুম বুকিং রয়েছে।’
সাজেক ইউনিয়নের ১৬৯ নম্বর শিয়ালদাই মৌজার হেডম্যান এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার জৈপুথাং ত্রিপুরা বলেন, ‘শনিবার রাতে অনেক পর্যটক হোটেলে রুম না পেয়ে খোলা আকাশের নিচে তাবু টাঙিয়ে রাত কাটিয়েছেন। আমাদের এখানে প্রায় ১২৭টির মতো কটেজ আছে কিন্তু তিনদিনের ছুটির কারণে সব কটেজ বুকিং থাকায় অতিরিক্ত আসা পর্যটকদের সমস্যায় পড়তে হয়েছে।’ সাজেক ইউপি সচিব বিশ্বজিৎ চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘সাজেক পর্যটন কেন্দ্রে কটেজগুলোতে একরুমে তিন তেকে চারজন করে থাকলেও প্রায় ২-৩ হাজার পর্যটক সাজেকে রাত্রিযাপন করতে পারে। কিন্তু দুইদিন সাপ্তাহিক ছুটি ও বড়দিনের বন্ধরে ফলে সাজেকে প্রচুর পরিমাণ পর্যটকের সমাগম হয়েছে। এর ফলে সাজেকে বাড়তি আসা টুরিস্টদের বাইরে রাত কাটাতে হচ্ছে।’- রাইজিংবিডি.কম




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com