শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০২:২১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
বিশ্বমানের টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি সেবা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসতে হবে : রাষ্ট্রপতি রাসূল (সা.)-এর সীরাত থেকে শিক্ষা নিয়ে দৃঢ় শপথবদ্ধ হয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে—ড. রেজাউল করিম চৌদ্দগ্রামে বাস খাদে পড়ে নিহত ৫, আহত ১৫ চাহিদার চেয়ে ২৩ লাখ কোরবানির পশু বেশি আছে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী রাজনীতিবিদেরা অর্থনীতিবিদদের হুকুমের আজ্ঞাবহ হিসেবে দেখতে চান: ফরাসউদ্দিন নতজানু বলেই জনগণের স্বার্থে যে স্ট্যান্ড নেয়া দরকার সেটিতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার মালয়েশিয়ার হুমকি : হামাস নেতাদের সাথে আনোয়ারের ছবি ফেরাল ফেসবুক হামাসের অভিযানে ১২ ইসরাইলি সেনা নিহত আটকে গেলো এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের অর্থ ছাড় গাজানীতির প্রতিবাদে বাইডেন প্রশাসনের ইহুদি কর্মকর্তার লিলির পদত্যাগ

দৈনন্দিন জীবনে চলাফেরায় নিজের মর্যাদা অটুট রাখুন

ফজল মুহাম্মদ, টরন্টো, কানাডা
  • আপডেট সময় বুধবার, ১৫ মে, ২০২৪

কখনোই অন্য মানুষের উপর নির্ভর থাকা উচিত নয়। কোন মানুষ যখন অন্যের ওপর নির্ভরশীল হয় , সমাজ তাকে পরগাছা বনি আদম মনে করে । তেমনি ভাবে কোন রাজনৈতিক দল বা গোষ্ঠী বা কোন রাষ্ট্র যদি একতরফা ভাবে অন্য গোষ্ঠীর বা রাষ্ট্রের ওপর দীর্ঘ কাল নির্ভরশীল হয়ে পড়ে বা তখন ঐ দল বা গোষ্ঠী অথবা রাষ্ট্রের মান মর্যাদা কমতে থাকে । আমাদের হিমালয়ান উপমহাদেশে ১৯৪৭ সালের পর বেশ কিছু রাষ্ট্রের নতুন নামে পরিচিতি লাভ করেছে আর এতে বৃটেনের সহযোগিতার মাধ্যমে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে । এতে মানচিত্রের সীমানা নির্ধারিত হয়েছে বটে, কিন্তু আজ অবধি ঐসব ছোট ছোট রাষ্ট্রগুলোকে পশ্চিমাবিশ্বের নেতারা তাদের নতুন অর্থনৈতিক কলোনী মনে করে । আর ঐসব দেশের উপনেবেশিক নেতারা পশ্চিমাবিশ্বের বিভিন্ন দেশের গোলামী করতে মনে হচ্ছে এখনো সুখ অনুভব করেন!
পক্ষান্তরে যে মানুষ বা দল বা গোষ্ঠী বা রাষ্ট্র অন্য কারো উপর বেশি দিন নির্ভরশীল থাকে না তারা সমাজে বেশি বেশি সম্মান। ১৯৬০ এর দশকে মালেশিয়া,ইন্দোনেশিয়,সিংগাপুর আমাদের দখিন এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক পিছিয়ে ছিল। কিন্তু মাত্র তিন দশকের মধ্যে মানে ১৯৯০ দশকের মাঝামাঝি ঐসব দশ গুলো সব সূচকে আত্মনির্ভরশীল হয়ে গেছে ।
আসিয়ান ভুক্ত বিভিন্ন দেশ আমাদের অনেক পরে স্বাধীনতা পেলেও তাদের রাজনীতি এখন তারাই নিজেদের মতো করেন। ভিন দেশী সাদা চামড়ার পশ্চিমাবিশ্বের নেতারা সেখানে গিয়ে রাজনৈতিক বা অর্থনৈতিক ছবক দিতে পারেন না । কারণ ঐসব দেশের রাজনৈতিক দল বা সরকার অন্য কোন গোষ্ঠী বা রাষ্ট্রের ওপর নির্ভরশীল থাকেন না। এখন সিংগাপুর আর মালেশিয়া নিজেদের রাজনীতি ও অর্থনীতি নিজেরাই পরিচালনা করেন । নিজেকে ব্যস্ত রাখা মানে আমাদের কাজ আমরাই করবো , এখানে ভিন দেশী কারো ছবক শুনতে বা মানতে না যাওয়া । কারণ বিদেশি লগ্নি কারী এনজিওর গড ফাদার গংদের যদি আমরা সব সময়ই মাঠে ময়দানে কথা বলার সুযোগ দেই বা ওদের সাথে যখন তখন মিটিং এ সময় দেয়া হয় ; তবে আমাদের নিজেদের মর্যাদা আর থাকে না । তাই নেতা হিসেবে বা দেশ হিসেবে নিজেদের ইজ্জত ও সম্মান রক্ষায় এখনই মনোনিবেশ করা উচিত । কোন মানুষ বা দল বা গোষ্ঠী বা রাষ্ট্রের নিজ নিজ সামাজিক ,ধর্মীয় রীতি নীতি কে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করে তাদের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিকাশ সাধনে দূরদর্শী পরিকল্পনা করা উচিত । আর এটা এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে সমাজ ও রাষ্ট্রের সবার মতামতের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে সহযোগিতা, ইনসাফ কায়েম করতে হবে । আমাদের বিশাল তরুণ দলকে কর্ম পাগল বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিতে হবে । আত্মমর্যাদা ওদের শিখাতে হবে।
সমাজের মানুষের কল্যাণের জন্য অতি সতর্ক ভাবে শিক্ষা ও চিকিৎসা খাতকে সেবা মুলক রাখতে হবে । কখনো কোন ভাবেই এই দুই খাতকে কর্পোরেট জগতের লুটেরা বণিকদের হাতে লাগামহীন ভাবে ছেড়ে দেয়া যাবে না । আমাদের এই বিপুল ও বিশাল তরুণ তরুণীদের যদি নৈতিকতার শিক্ষা এবং কর্ম উপযোগী শিক্ষা দিয়ে দক্ষ জনশক্তিকে দুনিয়ার দেশে দেশে পাঠানো যায়; তাহলে মাত্র এক দশকে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থার আমুল পরিবর্তন ঘটবেই ইনশাআল্লাহ ।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com