রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

ফের চালু হচ্ছে ৩ ও ১৫ দিনের ইন্টারনেট প্যাকেজ

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় রবিবার, ৭ জুলাই, ২০২৪

মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারকরীদের সুবিধার্থে ডাটা প্যাকেজ কমানোর সিদ্ধান্ত নেন তৎকালীন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। গত বছরের অক্টোবরে সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। ৯৫টির পরিবর্তে ডাটা প্যাকেজ ৪০টিতে নামিয়ে আনা হয়। এতে হিতে বিপরীত চিত্র দেখা দেয়। মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কমতে থাকে। ইন্টারনেট প্যাকেজ থেকে যে আয় হয়, তাতেও ধস নামে মোবাইল অপারেটরগুলোরও। অপারেটরগুলো জানায়, গ্রাহকদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্যাকেজ ছিল ৩ দিনের। এটা বন্ধ করায় ইন্টারনেট গ্রাহক কমে যায়। এতে তাদের আয়ে ভাটা পড়ে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কাছে ৩ ও ১৫ দিনের প্যাকেজ চালুর দাবি জানাতে থাকেন মোবাইল অপারেটরগুলো।
গ্রাহকরাও স্বল্পমেয়াদি ইন্টারনেট প্যাকেজগুলো বন্ধ করে দেওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন। অপারেটর ও গ্রাহক—উভয়পক্ষ অসন্তোষ প্রকাশের পর এ নিয়ে জরিপ করে বিটিআরসি। জরিপে দেখা যায়, প্রায় ৭০ শতাংশ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী তিনদিনের ডাটা প্যাকেজ ব্যবহার করেন। তারা পুনরায় ৩ ও ১৫ দিনের এ প্যাকেজ চালুর দাবিও জানান।
বিটিআরসির এক বৈঠকে সম্প্রতি এ তথ্য তুলে ধরা হয়। সেখানে উপস্থিতি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। গ্রাহকদের চাওয়া-পাওয়াকে গুরুত্ব দিয়ে প্যাকেজ সাজানোর পরামর্শ দেন প্রতিমন্ত্রী। এরপর ৩ ও ১৫ দিনের প্যাকেজ পুনরায় চালুর লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে বিটিআরসি।
সম্প্রতি বিটিআরসিতে কলড্রপ সংক্রান্ত সভায় জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, গণশুনানিতে দেখেছি, গ্রাহকদের কাছে ছোট প্যাকেজগুলোর জনপ্রিয়তা বেশি। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ও এ ব্যাপারে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। জনপ্রিয় প্যাকেজগুলো যেন আমরা পুনরায় চালু করি, সেই নির্দেশনা আছে।
তিনি বলেন, বিটিআরসি এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে। অপারেটরগুলোকে এ নিয়ে নির্দেশনা দিয়ে চিঠি ইস্যু করা হবে। আশা করি দ্রুত ছোট প্যাকেজগুলো আবারও ফিরে পাবেন গ্রাহকরা। বিটিআরসির এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে অপারেটরগুলো। তারা বলছেন, গ্রাহকদের কাছে ছোট প্যাকেজগুলো অনেক জনপ্রিয়। এ প্যাকেজগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা গ্রাহক হারিয়ে ফেলেছেন। এটা পুনরায় চালু হলে গ্রাহক আরও বাড়বে বলে মনে করেন তারা। রবি আজিয়াটা লিমিটেডের চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বলেন, গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী সেবার সুযোগ করে দিলে সবার জন্যই উত্তম। সেক্ষেত্রে শুধু তিনদিন নয়, গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী গ্রাহককেন্দ্রিক প্যাকেজের সুযোগ দেওয়া যেতে পারে। টেলিকম অপারেটরগুলোর সংগঠন এমটব মহাসচিব মোহাম্মদ জুলফিকার বলেন, আমরা সবসময় গ্রাহকবান্ধব সেবা দিতে চাই। বিটিআরসি থেকে এ নিয়ে আনুষ্ঠানিক নির্দেশনা পেলে সব অপারেটর পুনরায় ছোট প্যাকেজগুলো চালু করবে এবং গ্রাহকদের সেগুলো অফার করা হবে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com