রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
আগৈলঝাড়ায় সরকারি সম্পত্তি থেকে গাছ কর্তন, অবশেষে সমস্ত গাছ সিজ করল বন কর্মকর্তা আজ তৃতীয় ধাপে ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রেমের টানে মেক্সিকো থেকে জামালপুর লামায় অভিষেক ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ছাতিম ফুল: যে ফুলের সুবাসে সুবাসিত হয় হেমন্তের রজনী অপরিণত নবজাতক শিশুকে জন্মের এক মাসের মধ্যে চিকিৎকদের কাছে আনতে হবে রায়গঞ্জে রোপা আমন ধান কাটা শুরু, ফলন এবং দাম ভাল জ্বালানী তেল ও গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি এবং দ্রব্যমূল্য বাড়ায় প্রতিবাদে কুষকদলের লিফলেট বিতরন ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রামবাসীর তাড়া খেয়ে মরল নীলগাই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আরশিনগরে বর্ণাঢ্য আয়োজনের ঘোষণা




দেশজুড়ে সতর্কাবস্থানে পুলিশ

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১




অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে রাজধানীসহ সারাদেশে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। একইসঙ্গে দেশজুড়ে গোয়েন্দা তৎপরতাও বাড়ানো হয়েছে। পুলিশের দায়িত্বশীল যেসব কর্মকর্তা ছুটিতে ছিলেন, তাও বাতিল করে তাদের দ্রুত নিজ নিজ কর্মস্থলে ফেরার আদেশ দেওয়া হয়েছে। জানা যায়, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কেউ যাতে গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারে, সেজন্য সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে পুলিশকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। গত মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, ঢাকায় কর্মরত যেসব পুলিশ কর্মকর্তা ছুটিসহ বিভিন্ন কারণে ঢাকার বাইরে ছিলেন, তাদের বুধবার (২৪ নভেম্বর) পূর্বাহ্ণে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে যোগ দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি ঢাকার বাইরে যাদের যাওয়ার কথা ছিল, তাদেরও সফর বাতিল করতে বলা হয়েছে। তবে মঙ্গলবার রাত আড়াইটা পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কোনো পর্যায় থেকেই আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য দেওয়া হয়নি। নাম প্রকাশ করে পুলিশের কোনো কর্মকর্তা এ বিষয়ে কথাও বলতে চাননি। ডিএমপির একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেছেন, পুলিশ সদস্যদের শতভাগ সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সব ছুটি বাতিল করা হয়েছে। কেউ যাতে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বিশৃঙ্খলা তৈরি করতে না পারে, সে জন্য পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্ক রয়েছে। সম্ভাব্য যেকোনো ধরনের গুজবে দেশে যাতে অস্থিতিশী পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয়, সেজন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে মৌখিকভাবে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদ মাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হয়েছে। ঢাকায় কর্মরত যেসব পুলিশ কর্মকর্তা ছুটিসহ বিভিন্ন কারণে ঢাকার বাইরে ছিলেন, তাদের কর্মস্থলে যোগ দিতে বলা হয়েছে বলে জানা গেছে। অবশ্য বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কোনো পর্যায় থেকেই আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য জানা যায়নি। খবর বলা হয়েছে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কেউ যাতে গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারে, সে জন্য সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে পুলিশকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। একই সাথে দেশজুড়ে গোয়েন্দা তৎপরতাও বাড়ানো হয়েছে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের আন্দোলনের ডাক, গণপরিবহনে হাফ ভাড়া নিশ্চিত করতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারির দাবিসহ নানা ইস্যুতে পরিস্থিতি গরম হওয়ায় সরকার পুলিশকে সতর্ক অবস্থান নিতে নিদের্শ দিয়েছে বলে জানা গেছে।
পথ একটাই, আন্দোলন আন্দোলন আন্দোলন…: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তিনবারের প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবি শুধু বিএনপির নয়, দেশের ১৬ কোটি মানুযের। বেগম জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে পাঠাতে হবে। এ সময় বিএনপি মহাসচিব অন্যান্য রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, আসুন জনগণকে সাথে নিয়ে দেশ বাঁচাই, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করি এবং দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করি। গত সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সমাবেশে বিপুলসংখ্যাক নেতাকর্মী অংশ নেন। নেতাকর্মীদের ভীড়ে একসময় পল্টন-প্রেসক্লাব সড়ক বন্ধ হয়ে যায়। মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার আমাদের সমাবেশ করার কোনো জায়গা দিচ্ছে না। গণতন্ত্রের সকল স্তম্ভ ভেঙে দিয়েছে। এই সরকার সব ক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়েছে। সামনে আমাদের কোনো পথ খোলা নেই। পথ একটাই, আন্দোলন আন্দোলন আন্দোলন।
ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত: রাজধানীতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশি হামলার অভিযোগ করেছে ছাত্রদলের নেতারা। এ সময় পুলিশ ও ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা যায়। গতকাল সোমবার দুপুরে ছাত্রদল নেতারা এ অভিযোগ করেন।
ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তানজিল হাসান বলেন, সোমবার সকাল ১০টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ যোগ দেন। সমাবেশ শেষে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের নেতৃত্বে আমরা একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে মৎস্য ভবন, কাকরাইল মোড় হয়ে রাজমণি সিনেমাহলের সামনে গেলে দু’দিক দিয়ে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালায়। এতে অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হন। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, আমরা প্রেসক্লাব থেকে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি শেষে একটি মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলাম। এ সময় রাজমণি সিনেমাহলের সামনে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ছাত্রদলের অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হন। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আমরা সরকারের আজ্ঞাবহ এসব পুলিশ ক্যাডারদের ন্যাক্কারজনক এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
এছাড়া সব ধরনের গণপরিবহনে হাফ ভাড়া নিশ্চিত করতে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারির দাবি জানিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। গত মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর বকশিবাজার মোড়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এক অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানানো হয়। অবস্থান কর্মসূচি থেকে সাত কলেজ আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ইসমাঈল সম্রাট বলেন, ‘অবিলম্বে গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়া নিশ্চিত করতে হবে। এ জন্য সরকারকে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘গণপরিবহনের ভাড়া বাড়িয়ে দেশের শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের মাথায় বাড়তি বোঝা চাপানো হয়েছে। যে পরিবারে একাধিক শিক্ষার্থী বা সন্তান রয়েছে, তাদের বাবা-মা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খরচ, টিফিন খরচ, যাতায়াত ভাড়া দিতে হিমশিম খাচ্ছেন।’ বাস্তবতা বুঝে সরকারকে দ্রুত শিক্ষার্থীদের হাফভাড়া নিশ্চিত করার আহ্বান জানান তিনি। এই শিক্ষার্থী দাবি করেন, ‘গণপরিবহনে ছাত্রী ও নারীদের যৌন হয়রানি বন্ধ করতে হবে। তাদের নিরপদ যাত্রা নিশ্চিত করতে হবে।’




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com