বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৮:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে বিলাসছড়ার ব্রিজ ভেঙে ৬ হাজার মানুষের চরম দুর্ভোগ দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে পিরোজপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হাটহাজারীতে চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু তদন্তে সঠিক হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে-ডা:সোহানিয়া বিল্লাহ স্কুলছাত্রী ফারিয়া হত্যার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে লামায় আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল রৌমারীতে ৬৩ জেলার সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও সমাবেশ উল্লাপাড়ায় ইউএনও’র হস্তক্ষেপে চেয়ারম্যানের উদ্যোগে রক্ষা পেল কয়েকশ একর ফসলি জমি জলাবদ্ধতা থেকে পুকুরে কীটনাশক ঢেলে মাছ নিধন, দুই লাখ টাকার ক্ষতি নেত্রকোনায় জেলা বিএনপির দোয়া মাহফিল হাটহাজারীতে যুবলীগের মানববন্ধন ও কালো পতাকা প্রদর্শন

প্রবীণ সাংবাদিক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের ইন্তেকাল

শাহ্জাহান সাজু:
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১

একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ সাংবাদিক, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও নিউজ টুডের সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ আর নেই।
গতকাল শনিবার দুপুর দেড়টায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন তিনি (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। রিয়াজউদ্দিন আহমেদের পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, স¤প্রতি তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। প্রাথমিকভাবে তিনি বাসায় চিকিৎসা নেন। পরবর্তীতে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ১৬ই ডিসেম্বর রাতে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের জন্ম ১৯৪৫ সালে নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার নারান্দী গ্রামে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬৭ সালে অর্থনীতিতে এমএ ও ১৯৭২ সালে এলএলবি পাস করেন। কিছুদিন অধ্যাপনা শেষে ১৯৬৮ সালে তিনি পাকিস্তান অবজারভার পত্রিকায় যোগ দেন। ১৯৭০ সালে তৎকালীন পূর্ব-পাকিস্তান সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যকরী পরিষদের সদস্য ছিলেন।
১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ পাকিস্তান অবজারভারের চাকরি ত্যাগ করে মুক্তিযুদ্ধে সহযোগিতা করেন। স্বাধীনতার পর আবারও অবজারভারে যোগ দেন। সেখানে তিনি ১৯৯০ সালের নভেম্বর পর্যন্ত কাজ করেন।
সাংবাদিকদের দাবি আদায়ে লড়াকু সৈনিক ছিলেন রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ: সাংবাদিকদের অধিকার আদায় এবং স্বাধীন সাংবাদিকতার পথ প্রদর্শক ছিলেন রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে বাংলাদেশে সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে যারা মুখ্য ভূমিকা পালন করেন তিনি ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনেও সামনের সারিতে ছিলেন তিনি। সবশেষ অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টসের অপব্যবহার ও সাংবাদিকদের হয়রানি ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে রাজপথের আন্দোলনের সরব কন্ঠস্বর ছিলেন। সকল চাপের মধ্যেও সাংবাদিকদের কলমকে শক্তিশালী করার কথা বলতেন তিনি। দেশের সকল প্রতিষ্ঠান যখন দলগত বিভক্তিতে তিক্ত তখন রিয়াজউদ্দিন আহমেদ সম্পর্ক, সৌহার্দ্য ও ভ্রাতৃত্ব রক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন সবসময়। সাংবাদিকতায় গৌরবময় অবদানের জন্য রিয়াজউদ্দিন আহমেদ ১৯৯৩ সালে একুশে পদক লাভ করেন। গত ২১শে ডিসেম্বর তিনি বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত হন।
দীর্ঘ সাংবাদিকতা জীবনে রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ দ্য ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস এবং দি নিউজ টুডে পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদক, দ্য ফিনান্সিয়াল হেরাল্ডের সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া তিনি চারবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি নির্বাচিত হন। অবিভক্ত ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সেক্রেটারি এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে সত্যের সন্ধানে প্রতিদিন, আরব্য রজনী, পারস্য রজনী।
বিএফইউজে-ডিইউজের শোক: বরেণ্য সাংবাদিক এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি একুশে পদকপ্রাপ্ত জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। গতকাল শনিবার (২৫ ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রি.) বিএফইউজের সভাপতি এম আবদুল্লাহ ও মহাসচিব নূরুল আমিন রোকন এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহীদুল ইসলাম এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ ছিলেন এ দেশের সাংবাদিক জগতের এক আলোকবর্তিকা। পেশার মর্যাদা রক্ষা এবং সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি যে সাহসী ভূমিকা রেখেছেন, তা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাঁর মৃত্যুতে সাংবাদিক সমাজ একজন অভিভাবককে হারালেন-যা অপূরণীয়। বিবৃতিতে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। অনুরূপ শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শামসুল হক হায়দরী ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সরদার আবদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আবদুল আউয়াল, মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন খুলনার সভাপতি মোঃ আনিসুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান হিমালয়, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সভাপতি এম আইউব ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান, সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়ার সভাপতি মীর্জা সেলিম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক গণেশ দাস, সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন বাহারী ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আনছার উদ্দিন, কুমিল্লা জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রমিজ খান ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল ভূইয়া, সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুরের সভাপতি মো. মাহফিজুল ইসরাম রিপন ও সাধারণ সম্পাদক আতিউর রহমান, সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি আবদুর রাজ্জাক বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম মুকুল, সাংবাদিক ইউনিয়ন ময়মনসিংহের সভাপতি এম আইউব আলী ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সাংবাদিক ইউনিয়ন গাজীপুরের সভাপতি এইচ এম দেলোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ হেদায়েত উল্লাহ এবং সিলেট মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক খালেদ আহমদ। রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ গতকাল শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। সম্প্রতি তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। প্রথমে বাসায় চিকিৎসা নেন। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত ১৬ ডিসেম্বর রাতে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল।
সাংবাদিকতায় গৌরবময় অবদানের জন্য রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ ১৯৯৩ সালে একুশে পদক লাভ করেন। গত ২১ ডিসেম্বর তিনি বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত হন। আজ রোববার বেলা ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com