সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
শেরপুরে সরিষার বাম্পার ফলন নাজিরপুরের মাহামুদকান্দা মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদ কমিটিতে আবারও বিনা প্রতিদন্ধিতায় সভাপতি হলেন মিজানুর রহমান দুলাল পাখি কিনেন প্রভাবশালীরা, হরিণ শিকারও বেড়েছে গোদাগাড়ীতে পুরোদমে চলছে বোরো চাষবাদ নালিতাবাড়ীর নিশ্চিন্তপুর আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ বরিশালে ৬ষ্ট ও ৭তম শ্রেণির সিলেবাস বাতিলের দাবীতে ইমাম সমিতির বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালীতে সামাজিক বনায়নের গাছ কাটা অতঃপর জব্দ শিক্ষা যেমন ডিজিটাল হচ্ছে তেমনি শিক্ষকদেরও ডিজিটাল হতে হবে- মনোহরদীতে শিল্পমন্ত্রী হারবাংয়ে জমি দখলে নিতে অসহায় মহিলার বসতভিটা আগুনে পুড়িয়ে দিলো দূর্বৃত্তরা আলফাডাঙ্গায় শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন ও সনদ বিতরণ

হাসপাতালে ফারিয়া

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২

দিল্লির হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, গতকালসোমবার (২৮ নভেম্বর) তার অপারেশন। বিষয়টি তিনি তার ফেসবুকে পোস্ট করে নিজেই জানিয়েছেন। পোস্ট তিনি লিখেছেন, আমার সার্জারী হওয়ার কথা। যখন ইমিডিয়েটলি সার্জারি করতে হবে জানলাম, একটু টেনশনে পরলাম, কে যাবে আমার সাথে।
আমার বড় বোন দিল্লী থাকে, এইটা একটা ব্যাপার কিন্তু হাসপাতালে থাকার জন্য কাউকে লাগবে। আমার মেঝ বোনই সব সময় এই কাজ গুলো করে, কিন্তু আমার ছোট ভাইগ্নার ফাইনাল পরীক্ষা, আপু আসতে পারবে না। আর আমার আম্মুর যে শারীরীক অবস্থা আম্মুর পক্ষেও এসে থাকা সম্ভব না। তখন আমার বড় ভাগ্না নিজ থেকে বলে , আমি যাবো। আমার বড় ভাগ্না- ভাগ্নির সাথে আমার বয়সের যে পার্থক্য তাতে কোনদিনই তারা আমাকে খালা কনসিডার করে নাই। আমরা সবসময়েই বন্ধু। কিন্তু এখন সে আমার গার্জিয়ান। ওমরাহ তে যাওয়ার যখন কথা হচ্ছিল তখন আলোচনা হচ্ছিল ও ছাড়া আমার আর কোন মহর্রম নাই, যেহেতু আমার বাবা/ভাই/স্বামী কোনটাই নাই।
কিন্তু এতো আগে আগেই সীমান্তর তার খালার দায়িত্ব নেয়া লাগবে বুঝি নাই। সবার ঘরে আমার ভাগ্না/ভাগ্নির মতো responsible ভাগ্না/ভাগ্নি আসুক। পরিবার কত বড় রহমত বিপদ না আসলে বুঝা যায় না। সমস্যা একটাই কোন ভাবেই বিশ্বাসযাগ্য না যে, এই ভদ্রলোকের খালা আমি। আরো ৪/৫ বছর আগেই একবার বাসায় কম্পেইন আসছিল, কোন ছেলের হাত ধরে নাকি আমাকে হাটতে দেখা গেছে।
পরবর্তিতে জানা গেছে সেই ছেলে আর কেউ না, আমার বড় ভাইগ্না সীমান্ত। কই যাবো? এদিকে জানা যায়, অনেকদিন ধরেই নিশ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছিল ফারিয়ার। ভাবছিলেন, বংশগতভাবে রোগটি হয়ত এবার তাকে ধরেছে। কেননা এর আগে তার বাবা, মা ও বড় বোনের হার্টে জটিলতা ছিল। সেকারণেই দ্বারস্থ হয়েছিলেন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের। দেশ-বিদেশে একাধিক চিকিৎসক দেখিয়েছেন তিনি। কিন্তু চিকিৎসকরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, তার হৃদয়টা এখনও শতভাগ ঠিক আছে। তবে জটিলতা রয়েছে নাকে। নাকের হাড় ক্রমশ বেঁকে যাচ্ছে তার। সেকারণেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা ভোগাচ্ছে তাকে। এ সমস্যা থেকে নিস্তার পেতে হলে যেতে হবে ছুরি কাঁচির নিচে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com