মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১১:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম ::
পি কে হালদারকে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে : দোরাইস্বামী ২১ ডেঙ্গু রোগী ঢাকার হাসপাতালে ভর্তি হজে যেতে পাসপোর্টের মেয়াদ থাকতে হবে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির দুই নেতা সম্রাটের জামিন বাতিলের বিষয়ে আদেশ আজ আর্থিক অনুমোদনের ক্ষমতা কমলো পরিকল্পনামন্ত্রীর হানিমুনেই আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল জনি ডেপ: অ্যাম্বার ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ: বড় বাস ২৪০০, মাঝারি ট্রাক ২৮০০, কার/জিপে লাগবে ৭৫০ টাকা কবিতার ইতিহাসে কাজী নজরুলের ‘বিদ্রোহী’ এক অনন্য সাধারণ রচনা : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

গর্ভবতী মায়ের পুষ্টি ও যত্ন

খবরপত্র ডেস্ক:
  • আপডেট সময় সোমবার, ৯ মে, ২০২২

শরীরের ভেতরে একটি প্রাণ বেড়ে উঠছে। সেই অনুভূতি গর্ভবতী মায়ের জন্য এক অন্য রকম অনুভূতি। কিন্তু গর্ভবতী অবস্থায় নানান রকম শারীরিক এবং মানসিক পরিবর্তন লক্ষ করা যায় গর্ভবতী মায়েদের। এসময় মায়েদের প্রয়োজন বিশেষ যত্নের।
আসুন জেনে নেই গর্ভবতী অবস্থায় কিভাবে নিজেদের যত্ন নিতে হবে- ১. গর্ভবতী অবস্থায় মাকে দৈনিক ২-৩ ঘন্টা বিশ্রাম নিতে হবে ২. প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। ৩. শিশুর সুস্থ ভাবে জন্মগ্রহনের বেশিভার অংশই নির্ভর করে মায়ের উপর। শিশু তার পুষ্টি মায়ের পেটে থেকেই গ্রহণ করে থাকে। এই সময়টা তাই মায়েদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়। খাবার খাওয়ার ক্ষেত্রে মাকে হতে হবে সচেতন। তাই গর্ভাবস্থায় পুষ্টিকর খাবার খাওয়া মা ও সন্তান উভয়ের জন্যই একান্ত প্রয়োজনীয়। ৪. বিশেষজ্ঞদের মতে এসময় যথেষ্ট পরিমাণে আয়রন, প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার খেতে হবে। ৫. প্রচুর পরিমাণে সবুজ শাক সবজি খেতে হবে। এতে ফাইবার, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম থাকে যা গর্ভাবস্থায় বেশ স্বাস্থ্যকর খাবার। ৬. খাদ্যতালিকায় ডিম থাকা আবশ্যক। ডিমে রয়েছে ক্যালরি, প্রচুর প্রোটিন, ফ্যাট, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ । যা গর্ভবতী অবস্থায় মায়ের পুষ্টি যোগাতে সাহায্য করে। ৭. প্রতিদিন এক গ্লাস করে দুধ খেতে হবে। ফলে আপনার ক্যালসিয়াম এর ঘাটতি পূরণ হবে। ৮. মাছ-মাংস দৈনিক খাবারের তালিকায় রাখতে হবে। ৯. আম, তরমুজ, কলা, পেপে, আপেল, কলমা, মালটা, লেবু ইত্যাদি ভিটামিন যুক্ত ফল খেতে হবে নিয়মিত। ১০. শরীরে আয়রনের ঘাটতি যাতে না দেখা দেয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। ১১. নিয়মিত ডাক্তারের কাছে চেকআপে যেতে হবে। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ গ্রহণ করা যাবে না। ১২. সবসময় পরিষ্কার পরিছন্ন থাকতে হবে।




শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর









© All rights reserved © 2020 khoborpatrabd.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com