শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০, ১১:১৯ অপরাহ্ন




আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

খবরপত্র প্রতিবেদক :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৩ জুন, ২০২০
  • ৭৭ বার পঠিত



আজ ২৩ জুন। ১৯৪৯ সালের এই দিনে ঢাকার কেএম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে জন্ম নেয়া দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধসহ সব আন্দোলন-সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়া দলটি এবার পা রাখছে ৭২ বছরে।

এমন প্রেক্ষাপটে এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাঁকজমক কোনো আয়োজন নেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর বছরেও তাই সীমিত কর্মসূচিতেই থাকতে হচ্ছে ক্ষমতাসীন দলটিকে। তবে দলটির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা বলছেন, মানুষের ভালোবাসা ও সমর্থন নিয়ে আওয়ামী লীগ সব সময়ই বিজয়ী হয়েছে।

পথপরিক্রমা : ১৯৪৭ সালে সম্পূর্ণ পৃথক দুটি ভূখণ্ড, স্বতন্ত্র ভাষা ও সংস্কৃতির অঞ্চল নিয়ে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার মাত্র ৪ মাস ২০ দিনের মাথায় ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি তখনকার তরুণ নেতা শেখ মুজিবুর রহমান গঠন করেন সরকারবিরোধী ছাত্র সংগঠন পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ। এরই ধারাবাহিকতায় পরের বছর ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন ঢাকার স্বামীবাগে কেএম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর উদ্যোগে আয়োজিত কর্মী সম্মেলনে গঠন করা হয় পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ। মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী সভাপতি, টাঙ্গাইলের শামসুল হক সাধারণ সম্পাদক, শেখ মুজিবুর রহমানকে (কারাবন্দি ছিলেন) যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত হয় আওয়ামী (মুসলিম) লীগের প্রথম কমিটি।

১৯৫৫ সালে এই দল ধর্মনিরপেক্ষতাকে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে। দলের নামকরণ হয় ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ।’ মুক্তিযুদ্ধের পর ‘পূর্ব পাকিস্তান’ বাদ গিয়ে দলটি ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ’ নামে কার্যক্রম শুরু করে। এ দলের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৬৬ সালে বাংলার জনগণকে বাঙালি জাতীয়তাবাদের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে স্বাধিকার আদায়ের জন্য ঐতিহাসিক ৬ দফা ঘোষণা করেন। সেই ৬ দফা আন্দোলনের পথ বেয়েই ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, ’৭০-এর নির্বাচনে বাঙালির নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ ও ’৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে।

স্বাধীনতার পর ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর অনেকটা অস্তিত্ব সংকটেই পড়ে আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে আবদুল মালেক উকিল-জোহরা তাজউদ্দীনের দৃঢ়তায় সংকট কাটিয়ে উঠতে শুরু করে দলটি। ১৯৮১ সালে দলের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর দেশে ফিরতে সক্ষম হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালে তার নেতৃত্বেই ২১ বছর পর সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ২০০৮ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আবার সরকার গঠন করে দলটি। এরপর টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ।

এ সময়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়। সর্বশেষ শুদ্ধি অভিযান ব্যাপক প্রশংসা পায়। পাশাপাশি জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীকে সামনে রেখে মূল দল ও সহযোগী সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ দেন শেখ হাসিনা। মুজিব শতবর্ষে পরিকল্পনা নেন বছরব্যাপী কর্মসূচির। কিন্তু করোনার কারণে দেশ ও মানুষের কথা চিন্তা করে সবকিছু করা হয় স্থগিত।

কর্মসূচি : সকাল ৬টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে সকাল ৯টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন দলটির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির কয়েকজন সিনিয়র সদস্য।

বিকালে জাতির পিতাসহ ১৫ আগস্টে নিহত সব শহীদ, জাতীয় চার নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদ, বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে মৃত্যুবরণকারী আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত সবার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত এবং বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে অনুষ্ঠিত হবে দোয়া। এছাড়া দিনটি উপলক্ষে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবে প্রতিনিধি দল।

এমআইপি/প্রিন্স




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..









© All rights reserved © 2018 Daily Khoborpatra
Theme Developed BY ThemesBazar.Com